অসম আদিত্য - দেশ-জাতিৰ অতন্দ্ৰ প্ৰহৰী
শেহতীয়া খবৰ
পাকিস্তানৰ বিখ্যাত আনাৰকলি বজাৰ অঞ্চলত বোমা বিস্ফোৰণ-পদ্মশ্ৰী উদ্ধাৱ কুমাৰ ভৰালীৰ আত্মসমৰ্পণ-গণৰাজ্য দিৱস সমাগত, খাদী বৰ্ডৰ একাংশ কৰ্মচাৰী ব্যস্ত হৈ পৰিছে ৰাষ্ট্ৰীয় পতাকা সাজি উলিওৱাত-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-চীনে কৃত্ৰিম সূৰ্যৰ পিছত এতিয়া নকল চন্দ্ৰ (Artificial Moon) নিৰ্মাণ কৰিছে-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-দেশত কোৰোণাত আক্ৰান্তৰ সংখ্যা দিনক দিনে বৃদ্ধি পাইছে-নামনিৰ ৰে’ল যোগাযোগৰ ক্ষেত্ৰত আজি এক ঐতিহাসিক দিন

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নিরাপত্তার বিঘ্নিত হওয়ার ঘটনার তদন্তে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গড়ল সুপ্রিম কোর্ট

0

পঞ্জাবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi Security Breach) নিরাপত্তার বিঘ্নিত হওয়ার ঘটনার তদন্তে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে দিল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)৷ কমিটির নেতৃত্ব দেবেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রা৷ প্রধান বিচারপতির এন ভি রামান্নার নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন এই রায় দিয়েছে৷

অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রা ছাড়াও এই কমিটিতে থাকবেন এনআইএ-এর ডিজি, চণ্ডীগড়ের পুলিশ প্রধান, পঞ্জাব পুলিশের অ্যাডিশনাল ডিজি (সিকিউরিটি) এবং পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল ৷

প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়ার ঘটনায় কারা দায়ী, এই কমিটি মূলত তা খুঁজে বের করার চেষ্টা করবে৷ পাশাপাশি, এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে তার জন্য কী পদক্ষেপ করা উচিত, সেই সুপারিশও করবে তারা৷ যত দ্রুত সম্ভব কমিটিকে রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট৷

এ দিন এই নির্দেশ দিতে গিয়ে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, ‘এই প্রশ্নগুলির উত্তর পাওয়ার জন্য কোনও এক পক্ষের তদন্ত যথেষ্ট নয়৷ স্বাধীন তদন্তের প্রয়োজন৷’

গত বুধবার পঞ্জাব সফরে গিয়ে কৃষকদের পথ অবরোধে আটকে পড়ে প্রধানমন্ত্রীর কনভয়৷ প্রায় কুড়ি মিনিট রাস্তাতেই আটকে থাকেন নরেন্দ্র মোদি৷ বিক্ষোভকারীরা না সরায় শেষ পর্যন্ত ভাটিন্ডা বিমানবন্দর হয়ে দিল্লি ফিরে আসতে বাধ্য হন তিনি৷

এই ঘটনায় পঞ্জাব সরকার এবং কেন্দ্রের মধ্যে তীব্র চাপানউতোর শুরু হয়৷ দু’ তরফেই আলাদা আলাদা তদন্ত শুরু হয়৷ যদিও সুপ্রিম কোর্ট রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় সরকারের পৃথক তদন্তের উপরে স্থগিতাদেশ জারি করে৷

Leave A Reply

Your email address will not be published.