অসম আদিত্য - দেশ-জাতিৰ অতন্দ্ৰ প্ৰহৰী
শেহতীয়া খবৰ
আজিৰে পৰা ৰাজ্যত চলিব কোভিড ভেকচিনৰ বিশেষ অভিযান-আজিৰে পৰা ৰাজ্যত চলিব কোভিড ভেকচিনৰ বিশেষ অভিযান-আজিৰে পৰা আৰম্ভ হ'ব যোৰহাট-মাজুলী সংযোগী (Jorhat-Majuli Bridge) দলংখনৰ নিৰ্মাণৰ কাম-BARTALAAP EPI 11th - PART 2-কোৰোণা ভাইৰাছৰ নতুন ভেৰিয়েণ্ট অমিক্ৰণ (Coronavirus Omicron)ক লৈ চিন্তিত হৈ পৰিছে ভাৰত চৰকাৰ-হিন্দুস্তান ইউনিলিভার লিমিটেড এবং আইটিসি লিমিটেডের সাবান এবং ডিটারজেন্ট পাউডার-সহ নির্দিষ্ট কয়েকটি প্রোডাক্টের দাম বাড়ানো হয়েছে-বিসিসিআই কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধুমাল (Arun Dhumal) জানিয়ে দিলেন যে, পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী খেলা হবে-ভাৰতলৈ আহিব ৰাছিয়াৰ ৰাষ্ট্ৰপতি ভ্লাদিমিৰ পুটিন-বিশ্বত আকৌ কোৰোণাৰ নতুন ভেৰিয়েণ্টৰ আতংক-প্রো কাবাডি লিগ সিজন -৮ আগামী ২২ শে ডিসেম্বর থেকে উদ্যান নগরী বেঙ্গালুরুতে শুরু হচ্ছে

দেশের একশো কোটি মানুষকে করোনা টিকা প্রথম ডোজ দিয়ে ফেলেছে ভারত, তাঁর ৮২তম মন কি বাত অনুষ্ঠানে সেই সাফল্যের কথাই তুলে ধরলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

0

দেশের একশো কোটি মানুষকে করোনা টিকা প্রথম ডোজ দিয়ে ফেলেছে ভারত। তাঁর ৮২তম মন কি বাত অনুষ্ঠানে সেই সাফল্যের কথাই তুলে ধরলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

প্রধানমন্ত্রী এদিন বলেন, দেশের একশো কোটি মানুষকে টিকা দেওয়া দেশের ক্ষমতা প্রমাণ করে। এর পেছনে রয়েছে স্বাস্থ্যকর্মীদের অক্লান্ত পরিশ্রম। আমার দেশের মানুষের ক্ষমতা নিয়ে আমি অবগত। এত মানুষকে টিকা দেওয়া  বিশ্বে ভারতের ক্ষমতা তুলে ধরেছে। আমার দেশ ও দেশের মানুষের ক্ষমতা কতটা তা আমি জানি। জানি দেশের স্বাস্থ্যকর্মীরা দেশের সব নাগরিককে ভ্যাকসিন দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনও প্রচেষ্টার খামতি রাখবেন না।

দেশের ড্রোন টেকনোলজির সাফল্য নিয়েও আশাপ্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ড্রোনকে বিভিন্ন ধরনের পরিবহণের কাজে ব্যবহার করার চেষ্টা চলছে। তা সে যে কোনও জিনিসের হোম ডেলিভিরিই হোক বা আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উপর নজরদারির বিষয় হোক না। করোনা ভ্যাকসিন পরিবহণের কাজে ড্রোন ব্যবহার করা হচ্ছে।

ক্ষমতায় এসেই স্বচ্ছ ভারত মিশন চালু করেছিল মোদী সরকার। সেই কথাই টেনে আনেন প্রধানমন্ত্রী। মোদী বলেন, যখন স্বচ্ছতার কথা বলি তখন ভুলে যাবেন না সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিক ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। তাই আসুন স্বচ্ছ ভারত অভিযান বন্ধ হতে দেব না। সবার প্রচেষ্টায় আমরা এই দেশকে স্বচ্ছ করব এবং তা বজায় রাখব।

ভারত সবসময়েই শান্তির লক্ষ্য কাজ করে চলেছে। রাষ্ট্রসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীতে ভারতের ভূমিকা গোটা বিশ্ব লক্ষ্য করেছে। আাগামী ৩১ অক্টোবর জাতীয় একতা দিবস হিসেবে পালন করছে ভারত। আমাদের অন্তত একটা কাজ করা উচিত যা আমাদের জাতীয় ঐক্যের ধারনাকে তুলে ধরে। পরের রবিবার সর্দার প্যাটেলের জন্মদিন। যারা এই মন কি বাত ভাষণ শুনছেন তাদের সবার পক্ষ থেকে লৌহ মানবের সামনে নতজানু হই।

Leave A Reply

Your email address will not be published.