অসম আদিত্য - দেশ-জাতিৰ অতন্দ্ৰ প্ৰহৰী
শেহতীয়া খবৰ
আজিৰে পৰা ৰাজ্যত চলিব কোভিড ভেকচিনৰ বিশেষ অভিযান-আজিৰে পৰা ৰাজ্যত চলিব কোভিড ভেকচিনৰ বিশেষ অভিযান-আজিৰে পৰা আৰম্ভ হ'ব যোৰহাট-মাজুলী সংযোগী (Jorhat-Majuli Bridge) দলংখনৰ নিৰ্মাণৰ কাম-BARTALAAP EPI 11th - PART 2-কোৰোণা ভাইৰাছৰ নতুন ভেৰিয়েণ্ট অমিক্ৰণ (Coronavirus Omicron)ক লৈ চিন্তিত হৈ পৰিছে ভাৰত চৰকাৰ-হিন্দুস্তান ইউনিলিভার লিমিটেড এবং আইটিসি লিমিটেডের সাবান এবং ডিটারজেন্ট পাউডার-সহ নির্দিষ্ট কয়েকটি প্রোডাক্টের দাম বাড়ানো হয়েছে-বিসিসিআই কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধুমাল (Arun Dhumal) জানিয়ে দিলেন যে, পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী খেলা হবে-ভাৰতলৈ আহিব ৰাছিয়াৰ ৰাষ্ট্ৰপতি ভ্লাদিমিৰ পুটিন-বিশ্বত আকৌ কোৰোণাৰ নতুন ভেৰিয়েণ্টৰ আতংক-প্রো কাবাডি লিগ সিজন -৮ আগামী ২২ শে ডিসেম্বর থেকে উদ্যান নগরী বেঙ্গালুরুতে শুরু হচ্ছে

সুলতানপুর জেলার কারোয়াল খেরির বহুল চর্চিত পূর্বাঞ্চল এক্সপ্রেসওয়ে (Purvanchal Expressway) উদ্বোধন

0

সুলতানপুর জেলার কারোয়াল খেরির বহুল চর্চিত পূর্বাঞ্চল এক্সপ্রেসওয়ে (Purvanchal Expressway) উদ্বোধন হবে মঙ্গলবার। দুপুর ১.৩০-এ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। কোভিড সংক্রমণ থাকা সত্তেও রেকর্ড সময়ে এই রাস্তার কাজ শেষ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন UPEIDA-র CEO অবিনাশ অবস্থি।

২০২২ সালের উত্তর প্রদেশ (Uttar Pradesh) নির্বাচনের আগে এই রাস্তা উত্তর প্রদেশের মানুষের কাছে একটি বড় উপহার বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। ৩৪১ কিলোমিটার লম্বা এই রাস্তা লক্ষনৌ এবং গাজিপুরকে যুক্ত করছে। এই রাস্তা ভারতের দীর্ঘতম এক্সপ্রেসওয়ে। এর আগে এই তকমা ছিল লক্ষনৌ-আগ্রা এক্সপ্রেসওয়ের কাছে, যার দৈর্ঘ্য ছিল ৩০২ কিলোমিটার। 

এই রাস্তা উদ্বোধনের জন্য প্রধানমন্ত্রী আসবেন C-130J সুপার হারকিউলিস ট্রান্সপোর্ট এয়ারক্রাফটে। তাঁর সামনে ভারতীয় বায়ুসেনা একটি হাওয়াই কসরত দেখাবে। এটি হবে সুলতানপুর জেলায় এই এক্সপ্রেসওয়ের উপর নির্মিত একটি ৩.২ কিলোমিটার লম্বা এয়ারস্ট্রিপে। এই এয়ারস্ট্রিপ নির্মাণ করা হয়েছে যাতে আপতকালিন সময়ে এখানে ভারতীয় বায়ু সেনার যুদ্ধ বিমান অবতরন করতে পারে। 

প্রধানমন্ত্রী এই প্রজেক্টটি মানুষকে উৎসর্গ করবেন। এই প্রজেক্টের সুত্রপাত হয় ২০১৮ সালের জুলাই মাসের ১৪ তারিখে, আজমগড়ে। এই পূর্বাঞ্চল এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের অন্যতম কারণ ছিল উত্তর প্রদেশের বিভিন্ন প্রত্যন্ত অঞ্চল যেগুলি এখনও উন্নয়নের নিরিখে পিছিয়ে রয়েছে, সেই অঞ্চলগুলিতে উন্নয়নের কাজ শুরু করা। এই এক্সপ্রেসওয়েতে ৬টি লেন রয়েছে এবং পরবর্তীকালে ৮টি লেন করার মত সংস্থান রয়েছে এখানে। এই এক্সপ্রেসওয়ে বানাতে খরচ হয়েছে ২২,৫০০ কোটি টাকা।  

Leave A Reply

Your email address will not be published.