অসম আদিত্য - দেশ-জাতিৰ অতন্দ্ৰ প্ৰহৰী
শেহতীয়া খবৰ
পাকিস্তানৰ বিখ্যাত আনাৰকলি বজাৰ অঞ্চলত বোমা বিস্ফোৰণ-পদ্মশ্ৰী উদ্ধাৱ কুমাৰ ভৰালীৰ আত্মসমৰ্পণ-গণৰাজ্য দিৱস সমাগত, খাদী বৰ্ডৰ একাংশ কৰ্মচাৰী ব্যস্ত হৈ পৰিছে ৰাষ্ট্ৰীয় পতাকা সাজি উলিওৱাত-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-চীনে কৃত্ৰিম সূৰ্যৰ পিছত এতিয়া নকল চন্দ্ৰ (Artificial Moon) নিৰ্মাণ কৰিছে-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-দেশত কোৰোণাত আক্ৰান্তৰ সংখ্যা দিনক দিনে বৃদ্ধি পাইছে-নামনিৰ ৰে’ল যোগাযোগৰ ক্ষেত্ৰত আজি এক ঐতিহাসিক দিন

দিন ঘোষণা ভারত-চিন বৈঠকের

0

সীমান্তে শান্তি ফেরাতে বৈঠকে বসবে ভারত (India) ও চিন (China) সেনারা। বুধবার বৈঠক হবে কোর কমান্ডার স্তরে। বৈঠকের কথা ঘোষণা হয়েছিল কয়েক মাস আগেই। এবার লাদাখে কোর কমিটি স্তরে চতুর্দশ বৈঠকের দিন ঘোষণা হল। বুধবার চুশুল সেক্টর লাগোয়া মলডোতে হবে এই বৈঠক। ভারতীয় সেনা ডিরেক্টর জেনারেল অব মিলিটারি অপারেশন লেফটেন্যান্ট জেনারেল বিনোদ ভাটিয়ে বলেন, আমাদের আশা আলোচনার মাধ্যমে লাদাখে (Ladakh) বিবাদ মিটবে।  

লাদাখ নিয়ে বহুদিন ধরে অশান্তি চলছে। সেই অশান্তি মেটাতে, বৈঠকের (Meeting) কথা স্থির হয়েছিল গত নভেম্বরে। নভেম্বরে নয়াদিল্লি ও বেজিং-এর মধ্যে সীমান্ত নিয়ে ওয়ার্কিং মেকানিজম ফর কনসাল্টেশন অ্যান্ড কোঅর্ডিনেশন-এর বৈঠকেই স্থির হয় কোর কমান্ডার বৈঠকের কথা। ডেপসাং উপত্যকা ও হট স্প্রিংয়ের মতো অঞ্চল নিয়ে বিবাদ মেটাতে বৈঠক হবে।  

২০২০ সালের এপ্রিলে পূর্ব লাদাখের এলএসি পেরিয়ে চিনা পিপলস লিবারেশন আর্মি (Army) অনুপ্রবেশ করে। তার পরই শুরু হয় অশান্তি। ১৫ জুন গালওয়ানে সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় জওয়ানের মৃত্যু হয়। যদিও চিনা সেনারা দাবি করেন, তাদের হতাহতের সংখ্যা ছিল আরও বেশি। সেই থেকে অশান্ত উপত্যকা। সমস্যা সমাধানে এর আগেও বৈঠক হয়েছে। তবে, তেমন কোনও সুরাহা হয়নি। এবার ফের একবার সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নিল ভারত।  

এদিকে জানা গিয়েছে, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর দুপক্ষের সেনা বাড়িয়ে দিয়েছে। নজরদারি চলছে পুরো দমে। যে কোনও পরিস্থিতির জন্য ভারত প্রস্তুত। শান্তি পূর্ণ ভাবে সমস্যা মেটাতেও ভারত প্রস্তুত নিচ্ছে। তবে. চিনের পক্ষ থেকে সবুজ সংকেত মেলেনি। ভারতের দেওয়া প্রস্তাব এর আগে চিন মেনে নেয়নি। এখন দেখান বুধবারে বৈঠকে (Meeting) কোনও পরিবর্তন আসে কি না। 

১০ অক্টোবর ভারতীয় সেনার প্রস্তাব মানতে চায়নি চিন (China)। সেই বার ১৩ রাউন্ড আলোচনা হয়। এবার ফের এই একই প্রসঙ্গে বৈঠক। ভারতীয় সেনা ডিরেক্টর জেনারেল অব মিলিটারি অপারেশন লেফটেন্যান্ট জেনারেল বিনোদ ভাটিয়ে বলেন, দুপক্ষ আলোচনায় বসছে এটাই ইতিবাচক দিক। আলোচনার দ্বারা সমস্যা মিটতে সময় লাগবে।  

সে যাই হোক, এখন সকলে তাকিয়ে বুধবারে দিকে। এখন দেখার এই ভারত চিন বৈঠকের মাধ্যমে সীমান্তের অশান্তির নিষ্পত্তি হয় কি না। বৈঠকে ভারতের প্রস্তাব চিনের কাছে গ্রহণযোগ্য হয় কি না।  

Leave A Reply

Your email address will not be published.