অসম আদিত্য - দেশ-জাতিৰ অতন্দ্ৰ প্ৰহৰী
শেহতীয়া খবৰ
পাকিস্তানৰ বিখ্যাত আনাৰকলি বজাৰ অঞ্চলত বোমা বিস্ফোৰণ-পদ্মশ্ৰী উদ্ধাৱ কুমাৰ ভৰালীৰ আত্মসমৰ্পণ-গণৰাজ্য দিৱস সমাগত, খাদী বৰ্ডৰ একাংশ কৰ্মচাৰী ব্যস্ত হৈ পৰিছে ৰাষ্ট্ৰীয় পতাকা সাজি উলিওৱাত-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-চীনে কৃত্ৰিম সূৰ্যৰ পিছত এতিয়া নকল চন্দ্ৰ (Artificial Moon) নিৰ্মাণ কৰিছে-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-দেশত কোৰোণাত আক্ৰান্তৰ সংখ্যা দিনক দিনে বৃদ্ধি পাইছে-নামনিৰ ৰে’ল যোগাযোগৰ ক্ষেত্ৰত আজি এক ঐতিহাসিক দিন

শুক্রবার ২৪ বছরে পা দিলেন ‘সোনার ছেলে’ নীরজ চোপড়া

0

শুক্রবার ২৪ বছরে পা দিলেন ‘সোনার ছেলে’ নীরজ চোপড়া। আগামী বছর বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক ইভেন্টে নামবেন এই অ্যাথলিট। সেই জন্য এই মুহূর্তে বিদেশে রয়েছেন তিনি। ২০০৮ সালের বেজিং অলিম্পিক্সে ব্যক্তিগত বিভাগে মাত্র একটি সোনা জিতেছিলেন অভিনব বিন্দ্রা। ভারতের দ্বিতীয় অ্যাথলিট হিসেবে ব্যক্তিগত ইভেন্টে এ বার টোকিও অলিম্পিক্সে ফের সোনা জিতলেন নীরজ। জ্যাভেলিন থ্রো থেকে ভারতে এল ট্র্যাক অন্ড ফিল্ডের প্রথম পদক। কোয়ালিফিকেশন রাউন্ডে এক নম্বরে থেকে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছিলেন তিনি। এরপর গত ৭ অগস্ট সোনার পদক নিশ্চিত করেন নীরজ। ফাইনালে দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় ৮৭.৫৮ মিটার ছুড়ে পদক জিতলেন তিনি। তবে সেই সোনা জয় খুব সহজ ছিল না। অলিম্পিক্সের আগে হাঙ্গেরীতে অনুশীলন করেছিলেন। এরপর টোকিওতে এসে শরীর খারাপ হয়ে যায় নীরজের। কিন্তু সব বাধা অতিক্রম করে ইতিহাসের পাতায় লেখালেন ভারতীয় সেনা বাহিনীর এই জওয়ান। ২০১৮ সালে অস্ট্রেলিয়াতে বসেছিল কমনওয়েলথ গেমসের আসর। সেই সোনা জিতে বাজিমাত করেছিলেন এই জ্যাভলিন থ্রোয়ার। ৮৬.৪৭ মিটার থ্রো করে প্রথম ভারতীয় অ্যাথলিট হিসেবে কমনওয়েলথ গেমসে সোনা জিতে নজির গড়েছিলেন এই অ্যাথলিট। 

২০১৬ সালে আরও একটি নজির গড়েছিলেন নীরজ। সেই বছর আইএএফ অনূর্ধ্ব ২০ চ্যাম্পিয়নশিপে বিশ্ব রেকর্ড গড়ে পুরো ক্রীড়া জগতকে চমকে দিয়েছিলেন এই অ্যাথলিট। ৮৬.৪৮ মিটার জ্যাভলিন ছুড়ে ভারতের প্রথম অ্যাথলিট হিসেবে এই রেকর্ড গড়েছিলেন তিনি। ২০১৬ সালে নীরজের মুকুটে আরও একটি পালক যোগ হয়েছিল। সেই বছর ভারতে বসেছিল এই প্রতিযোগিতার আসর। শিলং ও গুয়াহাটিতে আয়োজিত হয়েছিল প্রতিযোগিতা। ৮২.২৩ মিটার জ্যাভলিন থ্রো করে সোনা জিতেছিলেন নীরজ। তবে সে বার সোনা জিতলেও রিও অলিম্পিক্সে যোগ্যতা অর্জন করতে পারেননি। চোট তাঁর বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল। পাশাপাশি সাউথ এশিয়ান গেমসে সোনা জিতলেও তিনি ৮৩ মিটার থ্রো করতে পারেননি। রিও-তে না নামতে পারার এটাও ছিল আরও একটি কারণ। মেডেল জেতার শুরুটা ২০১৪ সালে শুরু হয়েছিল। সেই বছর ব্যাংককে বসেছিল যুব অলিম্পিক্স। সেই প্রতিযোগিতায় রুপো জিতে দেশে ফিরেছিলেন এ বার টোকিও অলিম্পিক্সে ইতিহাস গড়া ‘সোনার ছেলে’ নীরজ। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.