অসম আদিত্য - দেশ-জাতিৰ অতন্দ্ৰ প্ৰহৰী
শেহতীয়া খবৰ
পাকিস্তানৰ বিখ্যাত আনাৰকলি বজাৰ অঞ্চলত বোমা বিস্ফোৰণ-পদ্মশ্ৰী উদ্ধাৱ কুমাৰ ভৰালীৰ আত্মসমৰ্পণ-গণৰাজ্য দিৱস সমাগত, খাদী বৰ্ডৰ একাংশ কৰ্মচাৰী ব্যস্ত হৈ পৰিছে ৰাষ্ট্ৰীয় পতাকা সাজি উলিওৱাত-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-চীনে কৃত্ৰিম সূৰ্যৰ পিছত এতিয়া নকল চন্দ্ৰ (Artificial Moon) নিৰ্মাণ কৰিছে-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-দেশত কোৰোণাত আক্ৰান্তৰ সংখ্যা দিনক দিনে বৃদ্ধি পাইছে-নামনিৰ ৰে’ল যোগাযোগৰ ক্ষেত্ৰত আজি এক ঐতিহাসিক দিন

বিধ্বংসী ঘূর্ণিঝড়ের দাপট আমেরিকায়

বিধ্বংসী ঘূর্ণিঝড়ের দাপট আমেরিকায়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণপূর্বের কেনটাকিতে শুক্রবার মধ্যরাতে হানা দিয়েছে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়। সূত্রের খবর ইতিমধ্যেই আমেরিকার ৫ রাজ্যে নিজের শক্তি জাহির করেছে এই একাধিক টর্নেডো। এই কারণে ইতিমধ্যেই অন্তত ৮০ জনের মৃত্য়ু হয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, ”আমেরিকার ইতিহাসে অন্যতম বড় ঝড় হানা দিয়েছে।” সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা এখন কেনটাকি। বিস্তীর্ণ এলাকা ঝড়ে একেবারে বিধ্বস্ত হয়ে গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। কেনটাকির গভর্নর জানিয়েছেন, সেখানেই অন্তত ৫০জনের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

মৃত্যুর সংখ্য়া আরও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। ভয়াবহ অবস্থা। কেনটাকির ইতিহাসে এত ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় এর আগে হয়নি। জানিয়েছেন সেখানকার গভর্নর। ২০০ মাইল জুড়ে অসংখ্য বাড়ি, দোকান নষ্ট হয়েছে এই ঝড়ে। কেনটাকির গভর্নর অ্যান্ডি বেশিয়ার বলেছেন, ”এমন বিধ্বংসী ঝড় আমরা এর আগে দেখিনি। কেনটাকিতে অন্তত ৫০ জন মারা গিয়েছেন। সংখ্যাটা আরও অনেক বাড়তে পারে।” ঝড়ের দাপটে কেনটাকিতে একটি মোমবাতি কারখানার উপরে গোটা ছাদ ভেঙে পড়েছিল। তার জেরেই বহু মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে জানাচ্ছেন গভর্নর। স্টেট অফ এমার্জেন্সি জারি করা হয়েছে। সূত্রের খবর, শুক্রবার আমেরিকারই একটি অঙ্গরাজ্য ইলিয়নসে আমাজনের গুদাম ভেঙে গিয়েছে প্রবল ঝড়ে। প্রায় শতাধিক কর্মী তাতে চাপা পড়ে গিয়েছেন। শনিবার ভোর থেকে উদ্ধারকাজ শুরু হলেও রবিবারও শুধুই মৃত্যুমিছিল। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় পরিস্থিতি মোকিবিলার চেষ্টা করছে প্রশাসন। ইলিয়নসের গভর্নর জেবি প্রিটজার জানিয়েছেন, ”দুর্গতদের জন্য আমি প্রার্থনা করছি। স্টেট পুলিশ ও দুর্যোগ মোকাবিলার কর্মীরা আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন।” আমাজনের তরফেও জানানো হয়েছে, কর্মীদের সুরক্ষার জন্য সবরকম উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে তাঁদের তরফে। আরকানাস, কেনটাকি ও টেনিসির উপর দিয়েই মূলত ঝড়টি বয়ে গিয়েছে। আরকানাসে একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে আপাতত শোনা যাচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে গোটা একটি নার্সিংহোমও।

Leave A Reply

Your email address will not be published.