অসম আদিত্য - দেশ-জাতিৰ অতন্দ্ৰ প্ৰহৰী
শেহতীয়া খবৰ
পাকিস্তানৰ বিখ্যাত আনাৰকলি বজাৰ অঞ্চলত বোমা বিস্ফোৰণ-পদ্মশ্ৰী উদ্ধাৱ কুমাৰ ভৰালীৰ আত্মসমৰ্পণ-গণৰাজ্য দিৱস সমাগত, খাদী বৰ্ডৰ একাংশ কৰ্মচাৰী ব্যস্ত হৈ পৰিছে ৰাষ্ট্ৰীয় পতাকা সাজি উলিওৱাত-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-চীনে কৃত্ৰিম সূৰ্যৰ পিছত এতিয়া নকল চন্দ্ৰ (Artificial Moon) নিৰ্মাণ কৰিছে-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-দেশত কোৰোণাত আক্ৰান্তৰ সংখ্যা দিনক দিনে বৃদ্ধি পাইছে-নামনিৰ ৰে’ল যোগাযোগৰ ক্ষেত্ৰত আজি এক ঐতিহাসিক দিন

নেলসন ম্যান্ডেলার দেশেই লাল বলের ক্রিকেটে অনন্য সেঞ্চুরি করে ইতিহাস লিখলেন বুমরা

0

বছর তিনেক আগে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট অভিষেক হয়েছিল জসপ্রীত বুমরার (Jasprit Bumrah)। এই নেলসন ম্যান্ডেলার দেশেই লাল বলের ক্রিকেটে অনন্য সেঞ্চুরি করে ইতিহাস লিখলেন বুমরা। সেঞ্চুরিয়নে সুপারস্পোর্ট পার্কে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে চলতি টেস্টের চতুর্থ দিনে বুমরা ১০০ নম্বর টেস্ট উইকেট পেলেন। দ্রুততম ভারতীয় হিসাবে বুমরা দেশের বাইরে এই নজির গড়লেন। 

অ্যাওয়ে টেস্টে রাসি ফান ডার ডুসেন (Van der Dussen ) বুমরার ১০০ নম্বর শিকার হন। ২৮ বছরের বিশ্ববন্দিত বোলারের ঝুলিতে এখন ১০৫টি টেস্ট উইকেট রয়েছে। যার মধ্যে ১০১টি উইকেটই তাঁর এসেছে বিদেশের মাটিতে। পরিসংখ্যান বলছে ঘরের মাঠে বুমরা পেয়েছেন চার উইকেট। এর আগে ভগবত চন্দ্রশেখর ২৫টি টেস্টে ১০০ উইকেট নিয়েছিলেন। চন্দ্রশেখরকে ছাপিয়ে গেলেন বুমরা। সেঞ্চুরিয়ানে দুই ইনিংস মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত মোট চার উইকেট নিয়েছেন বুমরা। গতবার দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে এসে বুমরা তিন ম্যাচে ১৪ উইকেট নিয়ে চমকে দিয়েছিলেন। টেস্ট অভিষেকেই বাইশ গজকে বুঝিয়ে দেন যে, এবার তিনি লাল বলের ক্রিকেটেও বল হাতে বিপক্ষের ত্রাস হয়ে উঠবেন।

চলতি বক্সিং ডে টেস্টে কার্যত ড্রাইভারের সিটে ভারত (Team India)। বলা যেতে পারে টেস্ট জয় স্রেফ সময়ের অপেক্ষা যদি না বৃষ্টি ‘ভিলেন’ হয়ে দাঁড়ায়। দ্বিতীয় ইনিংসে বুমরা (Jasprit Bumrah), মহম্মদ শামি (Mohammed Shami) ও মহম্মদ সিরাজের (Mohammed Siraj) ত্রিফলা প্রোটিয়া ব্যাটারদের বিদ্ধ করেছে। এই তিন পেসারকে সামলানো এলগার অ্যান্ড কোংয়ের কাছে মোটেও সহজ হবে না। কারণ সেঞ্চুরিয়ানে প্রথম টেস্ট জেতার জন্য ভারতের দরকার ৬ উইকেট। আর দক্ষিণ আফ্রিকার দরকার ২১১ রান। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.