অসম আদিত্য - দেশ-জাতিৰ অতন্দ্ৰ প্ৰহৰী
শেহতীয়া খবৰ
পাকিস্তানৰ বিখ্যাত আনাৰকলি বজাৰ অঞ্চলত বোমা বিস্ফোৰণ-পদ্মশ্ৰী উদ্ধাৱ কুমাৰ ভৰালীৰ আত্মসমৰ্পণ-গণৰাজ্য দিৱস সমাগত, খাদী বৰ্ডৰ একাংশ কৰ্মচাৰী ব্যস্ত হৈ পৰিছে ৰাষ্ট্ৰীয় পতাকা সাজি উলিওৱাত-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-অসম চৰকাৰে কোভিড আক্ৰান্তৰ বাবে সংশোধিত গাইড লাইন জাৰি কৰিছে-চীনে কৃত্ৰিম সূৰ্যৰ পিছত এতিয়া নকল চন্দ্ৰ (Artificial Moon) নিৰ্মাণ কৰিছে-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-বুজন সংখ্যক লোকক এতিয়া বিচাৰি ভেকচিন দিয়াটো হৈ পৰিছে স্বাস্থ্য বিভাগৰ কাৰণে ডাঙৰ প্ৰত্যাহ্বান-দেশত কোৰোণাত আক্ৰান্তৰ সংখ্যা দিনক দিনে বৃদ্ধি পাইছে-নামনিৰ ৰে’ল যোগাযোগৰ ক্ষেত্ৰত আজি এক ঐতিহাসিক দিন

আদিত্যনাথের নির্বাচনী এলাকা নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বৃহস্পতিবার সিইসির (CEC) বৈঠকে

0

ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে উত্তরপ্রদেশের লড়াই। নির্বাচনের প্রথম পর্বে এক মাসেরও কম সময় বাকি। উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনের (Uttar Pradesh Assembly poll) জন্য ভারতীয় জনতা পার্টির কোর কমিটি (BJP) বুধবার (১২ জানুয়ারি) প্রায় ১৪ ঘন্টার ম্যারাথন বৈঠক করেছে। 

আগেই মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে (Yogi Adityanath) মথুরা (Mathura) থেকে প্রার্থী করার জন্য জোরদার আওয়াজ উঠেছিল দলেরই অন্দরে। কিন্তু সূত্র বলছে, না। আসন্ন উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে মথুরা থেকে বিজেপি প্রার্থী (BJP’s candidate) হচ্ছেন না যোগী আদিত্যনাথ। সূত্রের খবর, কোর কমিটি অযোধ্যা-সহ বিধানসভা কেন্দ্রগুলি নিয়েও আলোচনা করেছে যেখানে দল মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে প্রার্থী করতে পারে। তবে আদিত্যনাথের নির্বাচনী এলাকা নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বৃহস্পতিবার সিইসির (CEC) বৈঠকে।

প্রসঙ্গত, আদিত্যনাথ পাঁচবার লোকসভায় গোরখপুর কেন্দ্র থেকে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। তিনি কখনও বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি এবং বর্তমানে তিনি বিধান পরিষদের সদস্য। এর আগে বিজেপি সাংসদ হরনাথ সিং যাদব এই বিষয়ে একটি চিঠি লিখে যোগী আদিত্যনাথকে মথুরা থেকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার দাবি করেছিলেন।

উল্লেখ্য, শাহ ছাড়াও এদিন বিজেপি উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনের ইনচার্জ ধর্মেন্দ্র প্রধান, উপ-মুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্য, বিজেপি ইউপি সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) সুনীল বনসাল এবং জাতীয় সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) বিএল সন্তোষও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বিজেপি সভাপতি জগৎ প্রকাশ নাড্ডাও কার্যত বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন।

উত্তর প্রদেশের ৪০৩ টি বিধানসভা কেন্দ্রে ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে সাতটি ধাপে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে কমিশন জানিয়েছে। উত্তরপ্রদেশে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ১০,১৪, ২০, ২৩, ২৭ ফেব্রুয়ারী এবং ৩ ও ৭ মার্চ৷ ভোট গণনা ১০ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে৷

Leave A Reply

Your email address will not be published.